সেনা সদস্যের বাড়িতে অনশনরত কলেজছা’ত্রী স্ত্রীর দাবি নিয়ে

মাগুরা সদর উপজেলার প্রেমিক সেনা সদস্য ইব্রাহিমের বাড়িতে একই গ্রামের এক ছাত্রী অনশন করছে। বিয়ের দাবিতে এবং স্ত্রীর মর্যাদা পাওয়ার জন্য। তিনি উপজেলার জগদল ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামে চার দিন ধরে অনশনের উপর অনশন করে যাচ্ছেন ।

জানা গেছে, লক্ষ্মীপুর গ্রামের ইদ্রিস বিশ্বাসের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে মেয়েটি ৪ দিন ধরে অনশন করছে । অনশন চলাকালীন সময়ে মেয়েটিকে ছেলের বাড়ির কাছ থেকে শুনতে হয়েছে বিভিন্ন রকমের অশ্লীল ও জঘন্য কথাবার্তা । যা ভদ্র মানুষের পক্ষে মুখ দিয়ে প্রকা্শ করা সম্ভব নয় , কিন্তু মেয়েটি এক চুল পরিমাণ ও নড়ে তার দাবি থেকে , আর তিনি অনড় থাকবেন ।

অনাহারে থাকা কলেজ ছাত্রী জানায় যে, সে আমাদের গ্রামের ইদ্রিস বিশ্বাসের পুত্র ইব্রাহিমের সাথে দীর্ঘ ৫ বছর ধরে প্রেম করে। আমার বাবা বিদেশে থাকার কারণে, 5 বছর আগে স্কুলে যাওয়া এবং আসার পথে, তিনি আমার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন। তিনি যখন আমাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, আর আমি উভয় পরিবারের সম্মতিতে এতদূর গিয়েছিলাম।

ইব্রাহীমের পরিবার আমাদের যত্ন নেয় কারণ আমার বাবা বিদেশে ছিলেন এবং কোনও অভিভাবক নেই।” ইব্রাহিম বর্তমানে রংপুর সেনানিবাসে সেনা হিসাবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত আছেন। বিভিন্ন সময় ইব্রাহিম আমার মায়ের কাছ থেকে কয়েক লক্ষ টাকা ধার করেছিলেন। উভয় পরিবারের সম্মতিতে, তিনি আমাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক শুরু করেছিলেন।

ছেলের বাবা ইদ্রিস বিশ্বাস বলেছিলেন, “মেয়েটির সাথে আমার ছেলের সম্পর্ক বিষয়ে আমরা জানি না।” আমার ছেলে কখনই আমাদের তার বিয়ের কথা বলেনি। মেয়েটিকে আমার পরিচিত । তিনি আমাদের গ্রামের বাসিন্দা। আমার ছেলে এই বিয়েতে রাজি নয়।

মেয়ের মা নার্গিস আক্তার বলেছিলেন, “আমার মেয়ের একটি বিবাহ মাত্র কয়েকদিন আগে হয়েছিল।” ইব্রাহিম ও তার মা আমাদের বাড়িতে এসে বিয়ে ভেঙে দিতে বলেছিলেন। তাদের বিশ্বাস করে আমার বিয়ে ভেঙে গেছে। এখন তারা আমাদের বিভিন্নভাবে প্রতারণা করছে।

জগদল ইউনিয়নের নবম ওয়ার্ডের সদস্য রবিউল ইসলাম বলেন, আমার চেয়ারম্যান করোনার উপর আক্রমণ করা হয়েছে এবং তিনি বর্তমানে অসুস্থ। বিষয়টি আমি তাকে জানিয়েছি। দু’পক্ষের পক্ষ থেকে এখনও কোনও সালিশ হয়নি। আমি গ্রামের কিছু লোকের সাথে বসে এই সমস্যাটি সমাধান করার চেষ্টা করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *