আসামের করিমগঞ্জে মূর্তি ভাঙ্গার উৎসব

বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই আসামের করিমগঞ্জে যেন মন্দিরে হামলা ও মূর্তি ভাঙার উৎসব শুরু হয়েছে। এবার হামলার ঘটনা ঘটলো গিরিশগঞ্জের কালী মন্দিরে।দুষ্কৃতীরা রাতের অন্ধকারে ওই কালী মন্দির হামলা চালায়। তাঁরা মন্দিরের দরজা জানালা ভাঙচুর করে। তবে মন্দিরের শক্তপোক্ত লোহার বারান্দা ভেঙে ভিতরে ঢুকতে পারেনি। ফলে ভিতরে থাকা মা কালীর মূর্তি রক্ষা মেয়ে যায়। এই ঘটনা গত ১৮ই জুলাই রাতে ঘটে।  বিগত কয়েকমাস ধরে করিমগঞ্জের বিভিন্ন প্রান্তে হিন্দু মন্দিরে দুষ্কৃতীদের হামলার ঘটনা ঘটে চলেছে। এর আগে লঙ্গাই রোডের কালীবাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। তারপর ১৩ই জুলাই সন্ন্যাসী মন্দিরে হামলার ঘটনা ঘটে, ভাঙচুর করা হয় মূর্তি। তার আগে ৯ই জুলাই করিমগঞ্জ শহরে শিব মন্দিরে ভাঙচুর চালানো হয়। প্রতি ক্ষেত্রেই দুষ্কৃতীরা রাতের অন্ধকারে মন্দিরে হামলা চালিয়েছে। তবে আশ্চর্যজনক ঘটনা হলো এই এতগুলি ঘটনার কোনোটিতেই কেউ গ্রেপ্তার হয়নি। এবার গিরিশগঞ্জের কালীবাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটলো। পুলিস ঘটনাস্থলে আসে এবং দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তার করার আশ্বাস দেয়। কিন্তু পরপর এতগুলি মন্দিরে দুষ্কৃতী হামলার ঘটনা ঘটায় হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দিরের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। পাশাপাশি কোনো ঘটনায় দুষ্কৃতীরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় স্থানীয় হিন্দুদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়েছে। স্থানীয়ই হিন্দু সংগঠনের অনেকের মতে, সম্পূর্ণ পরিকল্পনা করেই একের পর এক হিন্দু মন্দিরে হামলা চালানো হচ্ছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *